Home / কবিতা / কল্পলোকের কারিগর-মুহাম্মদ হুসাইন বিল্লাহ

কল্পলোকের কারিগর-মুহাম্মদ হুসাইন বিল্লাহ

এই সংবাদটি প্রিন্ট করুন
  •  
  •  
  •  

মুহাম্মদ হুসাইন বিল্লাহ

তিক্ত প্রদীপ জ্বলে উঠে হৃদয়ের বাতিঘরে
উচ্চমর্গীয় ব্যক্তিত্বের নীরব কষাঘাতে
নিঃশব্দ দহনে চোখ ফুড়ে বেরোয় অগ্নিরস!
নিতান্ত আমি এসব কিছুই চাইনি
অতঃপর শতাব্দীর আলোকস্থম্ভের মতো জ্বলছে ঝগড় হাওয়ায়
পালতোলা তরী খুঁজে নিচ্ছে আলোকরশ্মির আশীর্বাদ।

অনন্ত….
এভাবে আমি বেচে আছি তোমার অন্ধকার পাঠাগারে
পাঠ করছি তোমার উপলব্ধি, ভালোবাসা তোমার চাওয়া-পাওয়া!
এভাবে আমি আটাশ বসন্ত বিদায় করেছি।

জানালার গ্রীল ধরে…
দু’টি আঁখি’র পথ চেয়ে বসে থাকা;
উন্মুখ হয়ে থাকা প্রতিটি শেষ প্রহর
উন্মুক্ত দিগন্ত সংকীর্ণ হয়ে ওঠা..

অপেক্ষা….
অনন্ত প্রতিক্ষায় থাকা এবং বারংবার
জানালার পর্দা সরিয়ে দেখা শূন্যগলী..
এভাবে একদিন করে অবশেষে…

অনাথ সে….
ভবঘুরে তার কি আর বসন্ত আসে?
যাযাবর!তার কি আর ঠিকানায় বাধা যায়?যে সকাল প্রত্তুস গোধুলি কিছুই বঝেনা নিতান্ত তাকে একটা চলমান বস্তু বলা যেতে পারে!

স্বপ্ন বিলাশ…
প্রাচুর্যপূর্ণ আত্মাই পারে জগতকে সাজাতে
তার চোখের দ্যুতি, তার অনন্ত অনুভব
সেই অবলোকন করতে পারে
পূর্ণতা দিতে পারে তোমাকে।
প্রশান্তির মহাকালে নিয়ে যেতে পারে তোমাকে,শুধু সেই দিতে পারে তোমার হিরকচূর্ণ ভালোবাসা।

একান্ত অনুভবে…
একান্ত স্পর্শে তোমার রক্তস্রোত জাগিয়ে তুলতে পারে
তোমার জলধারায় আনতে পারে মায়াবী তুফান
তোমার স্বপ্নের প্রতিটি গলিতে সেই একমাত্র রংয়ের কারিগর
অনুভবে সেই অদৃশ্য কারিগর
অদৃশ্য বন্দীর মতো নিষ্পেষিত হচ্ছে প্রতিক্ষণ।

About WNN

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *